ঢাকাইয়া আজিজ হত্যা : একজনের মৃত্যুদণ্ড, আরেকজনের যাবজ্জীবন

0
2

কুখ্যাত খুনি খুলনার ত্রাস মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হওয়া সেই এরশাদ শিকদারের বলি ঢাকাইয়া আব্দুল আজিজ চাকলাদার হত্যা মামলায় তার দুই সহযোগীর একজনের মুত্যুদণ্ড এবং একজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের রায় দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে অপর দুই সহযোগীর বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় বেকসুর খালাস দিয়েছেন আদালত।

আজ সোমবার ঢাকার ৯ নম্বর বিশেষ জজ শেখ হাফিজুর রহমান এ দণ্ড ও খালাসের রায় ঘোষণা করেন। মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত হলেন- জয়নাল সরকার এবং যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত হলেন-মো. রুস্তুম আলী। আর খালাসপ্রাপ্তরা হলেন-জামাই ফারুক ও ইদ্রিস জামাই।

দণ্ডিতরা পলাতক আছেন। খালাসপ্রাপ্ত জামাই ফারুক ও ইদ্রিস ২৩ বছর ধরে কারাগারে রয়েছেন। এ মামলায় তারা খালাস পেলেও অন্য মামলায় দণ্ডিত আছেন বলে জানা গেছে। খালাসপাপ্তদের পক্ষে অ্যাডভোকেট আমিনুল গণি টিটো মামলা পরিচালনা করেন।

মামলার অপর দুই আসামি লস্কর মো. লিয়াকত বিচার চলাকালে মারা যাওয়ায় অব্যাহতি পেয়েছেন। আর নূরে আলম মামলায় রাজসাক্ষী হওয়ায় তিনিও অব্যাহতি পেয়েছেন এবং অপর দুই আসামি জয়নাল ও রুস্তুম আলী পলাতক।

আর খুলনার জলিল টাওয়ার মালিকের ম্যানেজার খালিদ হত্যা মামলায় ২০০৪ সালের ১০ এপ্রিল মধ্যরাতে খুলনা জেলা কারাগারে তার ফাঁসি কার্যকর করা হয়। তাই পরবর্তী সময়ে এ মামলা হতে তাকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

মামলায় বলা হয়, ১৯৯৮ সালের ৫ মার্চ সকাল ৭টায় আজিজ চাকলাদার ওরফে ঢাকাইয়া আজিজ লালবাগ রোডের বাসা থেকে খুলনা যাওয়ার পথে অপহরণ করে আসামিরা হত্যা করেন। হত্যার পর খুলনার রূপসা নদীতে তার লাশ ফেলে দেওয়া হয়। ২০০০ সালের ৪ এপ্রিল লালবাগ থানার তৎকালীন উপপরিদর্শক (এসআই) মো. আব্দুর রাকিব খান সাত জনের বিরুদ্ধে দাখিল করেন। একই বছর চার্জ গঠন করে আদালত।

মন্ত্যব্য সমূহ